টুইটার কি? কিভাবে টুইটার ফলোয়ার বাড়াবেন? (ভিডিওসহ)

প্রথমেই জেনে নেওয়া যাক টুইটার কি?

টুইটার হচ্ছে অনলাইন নিউজ এবং সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট। ফেসবুকে যেমন আমরা পোস্ট করে থাকি তেমনি টুইটারেও পোস্ট করা যায়। ফেসবুক পোস্টকে বলা হয় স্ট্যাটাস(Status), টুইটার পোস্টকে বলা হয় টুইট(Tweet). ফেসবুক পোস্টে শব্দ বা অক্ষরের কোন লিমিটেশন না থাকলেও টুইটারে রয়েছে।

  • বর্তমানে টুইটারে সর্বোচ্চ ২৪০ টি অক্ষর লিখে টুইট করা যায়। পূর্বে ১৪০টি অক্ষর ছিলো।
  • যদি ২৪০ অক্ষরের বেশি টুইট করতে চান তাহলে থ্রেড তৈরি করে করতে পারবেন। থ্রেড তৈরি করার জন্য টুইট করার অপশনে গিয়ে টুইটের পাশের ‘+’ বাটনে ক্লিক করতে হবে।
  • টুইটারে লিংক শেয়ার করা যায় এবং লিংকের জন্য সবসময় ২৩ অক্ষর বরাদ্দ থাকে। মানে হচ্ছে, লিংকে যত অক্ষরই থাকুক না কেনো তা ২৩ অক্ষরই হিসেবে গণণা করা হবে।
  • টুইটারে অক্ষরের এই লিমিটেশনের জন্য টুইটারকে মাইক্রোব্লগিং সাইটও বলা হয়ে থাকে।
  • প্রতিটি টুইটে হ্যাশট্যাগ(hashtag) ব্যবহার করা হয়। হ্যাশট্যাগের মাধ্যমে যেকোন খবর টুইটারে ভাইরাল হয়ে থাকে।

টুইটার ফলোয়ার কি? কিভাবে টুইটার ফলোয়ার বাড়ানো যায়?

ফেসবুক প্রোফাইলে যেমন বন্ধু বানানো যায় টুইটারে তেমনি ফলোয়ার বানানো হয়। ফেসবুকের সাথে এখানে পার্থক্য হচ্ছে বন্ধু হওয়ার জন্য ফেসবুকে রিকোয়েস্ট এক্সপেট করতে হয় কিন্তু টুইটারে তার প্রয়োজন হয় না। আপনি চাইলে যে কাউকে ফলো করতে পারবেন।

টুইটারে ফলোয়ার বাড়ানোটাই আসল। যত বেশি ফলোয়ার, তত বেশি মানুষের কাছে টুইট পৌঁছাবে। তবে এখানে ফেসবুকের মত যে কাউকে ফলো না করে বা ফলোয়ার না বানিয়ে যে উদ্দ্যেশ্যে টুইটার ব্যবহার করতে চাচ্ছেন তাদের ফলো করা এবং ফলোয়ার বানানো উচিত। উদাহরণ দেওয়া যাক।

ধরুন, আপনি ডিজিটাল মার্কেটিং নিয়ে কাজ করেন তাহলে যারা ডিজিটাল মার্কেটিং নিয়ে কাজ করে তাদের ফলো করবেন এবং যাদের ডিজিটাল মার্কেটিং সার্ভিস প্রয়োজন হতে পারে তাদের আপনার ফলোয়ার বানাবেন। বেশকিছু টুলসের মাধ্যমে এইগুলো কাজ করা যায়।

বর্তমানে আমি যে দুইটি টুলস ব্যবহার করছি তা নিয়ে আজকে বিস্তারিত বলবো। এছাড়াও আরো অনেক টুলস রয়েছে। আপনারা চাইলে সেগুলোও ব্যবহার করতে পারেন।

ভিডিওটি দেখে বাকি লেখাগুলো পড়লে বুঝতে সুবিধা হবে

টুইপি (Tweepi)

প্রথমেই পরিচয় করিয়ে দিচ্ছি টুইপির(Tweepi) সাথে। টুইপির মাধ্যমে আপনি অন্য মানুষকে ফলো করতে পারবেন। ধরুন আপনি চাচ্ছেন Neil Patel কে যারা ফলো করে তাদের ফলো করতে। এখন আপনি চাইলে নেইল পাটেলের প্রোফাইলে গিয়েও তার ফলোয়ারদের ফলো করা করতে পারেন। তাহলে কেনো টুইপি?

টুইপির মাধ্যমে অনেক কিছু ফিল্টার করে ফলো করা যায় এরমধ্যে আমি যেসব ফিল্টার বেশি ব্যবহার করি তা নিয়ে বলছি,

  • প্রোফাইলে এভাটর(প্রোফাইল ছবি) আছে বা নেই এমন প্রোফাইল ফিল্টার করে ফলো করা।
  • যাদের বায়োতে(Bio) নির্দিষ্ট কোন শব্দের উল্লেখ আছে তাদের ফিল্টার করে ফলো করতে পারা। মনে করুন, যাদের প্রোফাইল বায়োতে ‘Digital Marketing’ শব্দটা রয়েছে আপনি শুধু তাদের ফলো করতে চান।
  • কোন নির্দিষ্ট স্থানের মানুষদের ফিল্টার করে ফলো করতে পারা। এক্ষেত্রে সিটি(city) নাম দিয়ে ফলো করতে হবে।
  • সর্বশেষ কবে টুইট করেছে তা ফিল্টার করে ফলো করা। ধরুন, আপনি চাচ্ছেন যারা নূন্যতম ৭ দিনের মধ্যে একবার হলেও টুইট করেছে তাদের ফলো করতে।
  • ফলোয়ার সংখ্যা ফিল্টার করে ফলো করা।
  • ফলো রেশিও ফিল্টার করে ফলো করা। ফলো রেশিও হচ্ছে, কারো যদি ফলোয়ার সংখ্যা হয় ১০০০ এবং সে যদি ১০০০ মানুষকে ফলো করে থাকে তাহলে তার ফলো রেশিও হবে ১০০%।

এছাড়াও আরো বেশ কয়েকটি ফিল্টার রয়েছে। প্রয়োজন অনুযায়ী যেকোন ফিল্টার ব্যবহার করতে পারেন।

টুইপিতে ফলো বাটনে ক্লিক করলে সরাসরি টুইটারে ফলো হয় না। টুলসটি “tweepi-pending-follow” নামে একটি লিস্ট তৈরি করে। টুইটারের লিস্ট অপশনে গেলেই এটি খুঁজে পাবেন। এখান থেকে ফলো করতে পারবেন।

টুলসের মাধ্যমে যদি আপনি প্রতিদিন ফলো করতে থাকেন তাহলে এক মাসেই আপনার ৩০০০ ফলোয়িং হয়ে যাবে। কিন্তু এটা করা যাবে না। আপনার ফলো রেশিও ১ঃ১ বা ১ঃ২ এর কাছাকাছি হতে হবে। মানে আপনি যদি ১০০ জনকে ফলো করেন তাহলে আপনার ৫০ বা ১০০ ফলোয়ার থাকতে হবে।

আরো পড়ুনঃ রেডিট কি এবং কিভাবে রেডিট কারমা বাড়ানো যায়(ভিডিওসহ)
                   ফেসবুক এড ম্যানেজার দিয়ে যেভাবে বুস্টিং করবেন(ভিডিওসহ)

টুইটোনমি (Twitonomy)

আপনি ফলো করেছেন কিন্তু আপনাকে ফলোব্যাক করে নি এমন মানুষদের খুঁজে বের করার জন্য আমার পছন্দের টুলস হচ্ছে, টুইটোনমি। এছাড়া আপনাকে ফলো করছে কিন্তু আপনি ফলো করছেন না তাদের খুঁজে বের করেও সাথে সাথে ফলো করতে পারবেন। টুইপির মত এখানে কোন লিস্ট তৈরি হয় না, সরাসরি ফলো হয়।

ফলোয়ার, ফলোয়িং খুঁজে বের করা ছাড়াও এই টুলসের মাধ্যমে যেকোন টুইটার প্রোফাইল এনালাইসিস করা যায়। যেমন,

  • প্রোফাইলটি কি ধরনের টুইট করে
  • দিনে কত টুইট করে, প্রোফাইলের শুরু থেকে এখন পর্যন্ত কত টুইট করেছে
  • টুইট হিস্টোরি
  • প্রোফাইল ফলোয়ার সংখ্যা
  • সবচেয়ে বেশি ব্যবহার করা হ্যাশট্যাগ সমূহসহ আরো অনেক কিছু।

কিভাবে টুলস দুটি ব্যবহার করে ফলোয়ার বাড়াবেন

টুইপি এবং টুইটোনমি টুলস দুটির ব্যবহার সম্পর্কে আপনারা ধারনা পেয়েছেন। এখন জানা যাক কিভাবে টুলস দুটি ব্যবহার করবেন। প্রথমেই টুইপির মাধ্যমে ১০০ জনকে ফলো করবেন। ফলো করার পর দুই-তিনদিন অপেক্ষা করবেন যেন তারা আপনাকে ফলো ব্যাক করার সময় পায়।

দুই-তিনদিন পর টুইটোনমি টুলস ব্যবহার করে যারা আপনাকে ফলো ব্যাক করে নি তাদের আনফলো করে দিবেন। পাশাপাশি নতুন কেউ যদি আপনাকে ফলো করে থাকে তাহলে তাকে ফলো ব্যাক করবেন। নাহলে তারা আপনাকে আনফলো করে দিতে পারে।

যারা ফলো করে নি তাদের আনফলো করার পর আবার টুইপিতে গিয়ে নতুন আরো ১০০ জনকে ফলো করবেন। এভাবে নিয়মিত ২-৩ মাস কাজ করলে ধীরে ধীরে আপনার ফলোয়ার সংখ্যা বাড়তে থাকবে।

বিশেষ কিছু সতর্কতা

  • টুইপি এবং টুইটোনমি টুলসে প্রায়ই বিভিন্ন পরিবর্তন হয়ে থাকে। কাজ করার সময় নিয়মিত চেক করে নিবেন।
  • থার্ড পার্টি টুলস হওয়ায় যেকোন সময় টুলস দুটির ব্যবহার বন্ধ করে দিতে পারে। তখন নতুন কোন টুলস নিয়ে কাজ করতে হবে। এই ব্যাপারে সতর্ক থাকবেন।
  • টুইপির মাধ্যমে দিনে সর্বোচ্চ ১০০ জনকে ফলো করতে পারবেন।
  • টুইটোনমি দিয়ে দিনে সর্বোচ্চ ১০০ জনকে আনফলো করবেন।
  • টুইটারে ফলো এবং ফলোয়িং রেশিও ১ঃ১ রাখার চেষ্টা করবেন। যদিও বেশিরভাগ সময় তা সম্ভব হয় না।
  • একদিনে বেশি ফলো এবং আনফলো করবেন না। সর্বোচ্চ ১০০।
  • একই দিনে ফলো এবং আনফলো করবেন না। নিয়মিত এই কাজ করলে একাউন্ট ব্যান করে দিতে পারে। তাই একদিন ফলো করলে পরের দিন আনফলো করতে পারেন।

টুইটারে ফলোয়ার বাড়ানোর আরেকটি অন্যতম টুলস হচ্ছে নিয়মিত টুইট করা। নতুন একাউন্টে দিনে কমপক্ষে ১০-৩০টা পর্যন্ত টুইট করবেন। সমস্যা হচ্ছে, ম্যানুয়ালি বসে থেকে এত টুইট প্রতিদিন করা সম্ভব না। কিভাবে টুলসের মাধ্যমে অটোমেটিক টুইট করতে পারেন তা নিয়ে পরের পর্বে বিস্তারিত লিখবো ইনশাআল্লাহ।

বিনা অনুমতিতে Copy-Paste না করার অনুরোধ রইলো।

আমি টুইটার ফলোয়ার বাড়ানোর সার্ভিস দিয়ে থাকি। স্কাইপে বা ফেসবুকে যোগাযোগ করতে পারেন।

Skype ID: samiul.hasan.himel

কোন প্রশ্ন থাকলে কমেন্ট করুন।

ভালো লেগে থাকলে পোস্টটি সবার সাথে শেয়ার করবেন। ধন্যবাদ।

আপনার মতামত জানান
SHARE

5 COMMENTS

  1. আপনাকেও ধন্যবাদ 🙂

    আমি চেষ্টা করি প্রতি সপ্তাহে একটি করে নতুন আর্টিকেল শেয়ার করতে।

  2. হিমেল, তোমার প্রচেষ্টা কে সাধুবাদ জানাই। আশাকরি তুমি নিজেকে প্রতিদিন ছাড়ায়ে যাবার চেষ্টা করবে আর তোমার কাছে প্রতিনিয়ত ভালো কিছু আশাকরি।
    তোমার লেখা অনেক সুন্দর হয়েছে। চালায়ে যাও। আমাকে তোমার পাশেই পাবে।

    • অনেক ধন্যবাদ ভাই। আপনাদের প্রেরণাই আমাকে আরো বেশি উৎসাহিত করে।

  3. অনেক সুন্দর করে বুঝিয়ে লেখেন। বেশ ভালো লাগলো আপনার লেখা।

    • ধন্যবাদ। আমি চেষ্টা করেছি যেন সহজে সবাই বুঝতে পারে।

Comments are closed.