সেন্টমার্টিন – ৯টি সেরা রিসোর্ট (২০২২)

সেন্টমার্টিন – সমুদ্রের বুকে এক টুকরো নীল ভালোবাসা। বাংলাদেশের একমাত্র প্রবাল দ্বীপ। নভেম্বর থেকে মার্চ সেন্টমার্টিন ভ্রমণের সময়। এসময় টেকনাফ থেকে সরাসরি জাহাজে করে সেন্টমার্টিন যাওয়া যায়। অবশ্য এবছর কক্সবাজার থেকে সেন্টমার্টিনগামী জাহাজ চলাচল শুরু হয়েছে। সেন্টমার্টিনের হোটেল এবং রিসোর্ট সম্পর্কে অনেকের সঠিক ধারণা নেই। সেন্টমার্টিনের জনপ্রিয় ১০টি রিসোর্টের তথ্য বর্ণণা করা হলো।

বি.দ্র. রিসোর্টের নামে ক্লিক করলে রিসোর্টের বিস্তারিত অংশে নিয়ে যাবে।

রিসোর্ট নাম ভাড়া
দ্বীপান্তর বিচ রিসোর্ট ৫৫০০-৭৫০০/-
আটলান্টিক রিসোর্ট ৬০০০-১২,৫০০/-
জ্যোৎস্নালয় বিচ রিসোর্ট ২০০০-৫৫০০/-
ব্লু মেরিন রিসোর্ট ৬০০০ এবং ১০,০০০/-
ফ্যান্টাসি হোটেল এন্ড রিসোর্ট ৬০০০-১৩০০০/-
কিংশুক ইকো রিসোর্ট ২৫০০-৪৫০০/-
মিউজিক ইকো রিসোর্ট ৩০০০-৬০০০/-
নীল দিগন্ত রিসোর্ট ২৫০০-৪৫০০/-
দ্যা বিচ ক্যাম্প রিসোর্ট ২৫০০-৫০০০/-
সময়ভেদে ভাড়া যেকোন সময় কম-বেশি করতে পারে

দ্বীপান্তর বিচ রিসোর্ট (Dwipantor Beach Resort)

Dwipantor Beach Resort

দীপান্তর রিসোর্টটি সেন্টমার্টিন দ্বীপের পশ্চিম বিচে অবস্থিত। রিসোর্টের চারিদিকে রয়েছে প্রচুর নারিকেল গাছ। রিসোর্টের ঠিক সামনেই সমুদ্র সৈকত। জোয়ারের সময় রিসোর্টের দোরগোড়ায় পানি আছড়ে পড়ে। রিসোর্টটিতে সিঙ্গেল এবং ডুপ্লেক্স দুই ধরনের কটেজ রয়েছে।

অবস্থানঃ পশ্চিম বিচে
ভ্যান নিয়ে জেটিঘাট রিসোর্টের কাছাকাছি পর্যন্ত যাওয়া যায়। ভাড়া নিবে আনুমানিক ২০০-২৫০ টাকা।

রুমঃ রিসোর্টটিতে ৫টি কটেজ এবং ৩টি তাঁবু রয়েছে।

  • স্ট্যাটার্ড ওয়েতে, একইদিনে সর্বমোট ২০ জন থাকতে পারবে।
  • এক্সট্রা বেড সহ একই দিনে সর্বোচ্চ ৩২ জন থাকতে পারবে।

রিসোর্ট ভাড়া

  • বিচ ভিউ প্রিমিয়াম সিঙ্গেল কটেজঃ ২টি (এক রুমে ২ জন থাকতে পারবে)
  • বিচ ভিউ প্রিমিয়াম ডুপেক্স কটেজঃ ৩টি (স্ট্যান্ডার্ড-৪ জন। এক্সট্রা বেডসহ সর্বোচ্চ ৬ জন থাকতে পারবে)
  • তাঁবুঃ ৩টি (স্ট্যান্ডার্ড-৪ জন। এক্সট্রা বেডসহ সর্বোচ্চ ৬ জন থাকতে পারবে)

ভাড়ার তালিকা নিচে দিয়ে দিলাম,

  • বিচ ভিউ প্রিমিয়াম সিঙ্গেল কটেজঃ ৫৫০০ টাকা
  • বিচ ভিউ প্রিমিয়াম ডুপেক্স কটেজঃ ৭৫০০ টাকা
  • তাঁবুঃ ৩৫০০ টাকা
  • এক্সট্রা বেডঃ
    • সিঙ্গেলঃ ৫০০ টাকা
    • ডুপেক্সঃ ৭৫০ টাকা
    • তাঁবুঃ ৫০০ টাকা
  • এক্সট্রা বেডসহ সবার জন্য কমপ্লিমেন্টারি নাস্তার ব্যবস্থা থাকবে।

রিসোর্টের সুবিধা সমূহঃ

  • ব্র্যান্ডের টয়লেটারিজ
  • সি-ভিউ রুম
  • রিসোর্টের সামনের বিচ থেকে নৈসর্গিক সূর্যাস্ত দেখা
  • নিজস্ব রেস্টুরেন্ট ‘Charcoal’

ফেসবুক পেজঃ দ্বীপান্তর বিচ রিসোর্ট (Dwipantor Beach Resort)


আটলান্টিক (লাবিবা) রিসোর্ট (Atlantic/Labiba Bilash Resort)

দ্বীপের পশ্চিম বিচে সাগরের কোল ঘেঁষে আটলান্টিক রিসোর্ট। জোয়ারের সময় রিসোর্টের দাঁড়প্রান্ত পর্যন্ত সমুদ্রের পানি চলে আসে। রিসোর্টের দোতলার রুম থেকে সাগর দেখা যায়।

অবস্থানঃ পশ্চিম বিচে
ভ্যান নিয়ে জেটিঘাট রিসোর্টের কাছাকাছি পর্যন্ত যাওয়া যায়। ভাড়া নিবে আনুমানিক ২০০-২৫০ টাকা।

রিসোর্ট ভাড়াঃ ৬০০০ থেকে ১২৫০০ টাকা পর্যন্ত।

রুমঃ ৪৩টি

ওয়েবসাইটঃ http://www.atlanticresortsaintmartin.com

রেটিং,
ফেসবুক পেজঃ কোন রিভিউ নেই
গুগলঃ ৩.৭ (৮২টি রিভিউ)

রিসোর্টের সুবিধা সমূহঃ
১। রিসোর্টে খাবারের সুব্যবস্থা
২। লন্ড্রি সার্ভিস
৩। লবিতে স্যাটেলাইট টিভি
৪। ISD & NWD ফোন কানেকশন
৫। বিচ ভিউ রুম
৬। বিচের সামনে সমুদ্র

ফেসবুক পেজঃ আটলান্টিক (লাবিবা) রিসোর্ট (Atlantic/Labiba Bilash Resort)


জ্যোৎস্নালয় বিচ রিসোর্ট (Josnaloy Beach Resort)

জ্যোৎস্নালয় রিসোর্টটি সেন্টমার্টিন দ্বীপের পশ্চিম বিচে অবস্থিত। রিসোর্টের চারিদিকে রয়েছে প্রচুর নারিকেল গাছ। রিসোর্টের ঠিক সামনেই সমুদ্র সৈকত। রিসোর্টের উঠোনে আড্ডা দেওয়ার জন্য ছাউনি দেওয়া মাচা তৈরি করা হয়েছে। যেখানে বসে সমুদ্র দেখতে দেখতে আড্ডা জমবে বেশ।

অবস্থানঃ পশ্চিম বিচে
ভ্যান নিয়ে জেটিঘাট রিসোর্টের কাছাকাছি পর্যন্ত যাওয়া যায়। ভাড়া নিবে আনুমানিক ২০০-২৫০ টাকা।

রুমঃ রিসোর্টটিতে ১১টি রুম রয়েছে। একই দিনে ৪৬জন একসাথে থাকতে পারবে।

রিসোর্ট ভাড়াঃ ২০০০ থেকে ৫৫০০ টাকা পর্যন্ত

ফেসবুক পেজঃ  জ্যোৎস্নালয় বিচ রিসোর্ট (Josnaloy Beach Resort)


ব্লু মেরিন রিসোর্ট (Blue Marine Resort)

জেটিঘাট থেকে খুব কাছেই ব্লু মেরিন রিসোর্টটি অবস্থিত। দ্বীপের অন্যতম লাক্সারিয়াস রিসোর্ট।

অবস্থানঃ জেটিঘাটের কাছে

রিসোর্ট ভাড়াঃ ৬০০০ থেকে ১০,০০০ টাকা পর্যন্ত

রুম সংখ্যাঃ ৪১টি

ওয়েবসাইটঃ http://www.bluemarineholidays.com

রেটিং,
ফেসবুক পেজঃ ৩.৭ (১৮টি রিভিউ)
গুগলঃ ৪.৪ (১৭টি রিভিউ)

রিসোর্টের সুবিধা সমূহঃ
১। ভিআইপি এসি রুম (কাপল বেড/ডাবল বেড)
২। নিজস্ব রেস্টুরেন্ট
৩। বিচ ভিউ রুম

ফেসবুক পেজঃ ব্লু মেরিন রিসোর্ট (Blue Marine Resort)


ফ্যান্টাসি হোটেল এবং রিসোর্ট (Fantasy Hotel & Resort)

ফ্যান্টাসি হোটেল এবং রিসোর্টটি ২০২০ সালে উদ্ভোধন করা হয়েছে। থ্রিস্টার মানের লাক্সারিয়াস রিসোর্ট।

অবস্থানঃ জেটিঘাটের কাছে

রিসোর্ট ভাড়াঃ ৬০০০ থেকে ১৩০০০ টাকা পর্যন্ত

রুম সংখ্যাঃ ১০০+

ওয়েবসাইটঃ https://www.hotelfantasy.com.bd

রেটিং,
ফেসবুক পেজঃ ৪.৪ (৩৯টি রিভিউ)
গুগলঃ ৩.৭ (১৪৪টি রিভিউ)

রিসোর্টের সুবিধা সমূহঃ
১। প্রতিটি হাইস্পিড ইন্টারনেট সুবিধা
২। ল্যাপটপের জন্য ডেডিকেটেড পোর্ট
৩। স্যাটেলাইট টিভি চ্যানেল
৪। প্রাইভেট ভিআইপি লাউঞ্জ
৫। সিসি ক্যামেরা
৬। নিজস্ব রেস্টুরেন্ট
৭। কমপ্লিমেন্টারি ব্রেকফাস্ট
৮। এসি রুম
৯। বিচ ভিউ রুম
১০। তাঁবুতে থাকার ব্যবস্থা

ফেসবুক পেজঃ ফ্যান্টাসি হোটেল এবং রিসোর্ট (Fantasy Hotel & Resort)


কিংশুক ইকো রিসোর্ট (Kingshuk Eco Resort)

কিংশুক ইকো রিসোর্ট বিচের একাবারে পাশে অবস্থিত নিরিবিলি একটি ইকো রিসোর্ট।

অবস্থানঃ গলাচিপা
ভ্যান নিয়ে জেটিঘাট রিসোর্টের কাছাকাছি পর্যন্ত যাওয়া যায়। ভাড়া নিবে আনুমানিক ৩০০-৪০০ টাকা।

রিসোর্ট ভাড়াঃ ২৫০০ থেকে ৪৫০০ টাকা পর্যন্ত

রেটিং,
ফেসবুক পেজঃ ৪.৭ (১৫টি রিভিউ)
গুগলঃ ৩.৮ (১৮৩টি রিভিউ)

রিসোর্টের সুবিধা সমূহঃ
১। নিজস্ব রেস্টুরেন্ট
২। বাঁশের কটেজ
৩। বিচ ভিউ রুম
৪। তাঁবু

ফেসবুক পেজঃ কিংশুক ইকো রিসোর্ট (Kingshuk Eco Resort)


মিউজিক ইকো রিসোর্ট (Music Eco Resort)

দ্বীপের শেষ সীমানায় দক্ষিন-পশ্চিম বিচে মিউজিক ইকো রিসোর্ট অবস্থিত। এর পরেই ছেঁড়াদ্বীপ শুরু। রিসোর্টে থাকার ব্যবস্থা কিছুটা ভিন্ন। কন্টেইনার এবং তাঁবুতে থাকতে হবে। সেন্টমার্টিনের রক বিচের কাছে হওয়ায় দ্বীপের ভিন্ন সৌন্দর্য দেখা যাবে। রিসোর্ট থেকেই প্রচারনা চালানো হয়, এই রিসোর্ট সবার জন্য নয়। রিসোর্টে যেতে যে কষ্ট হয়, সেখানে থাকার পর তা নিয়ে কোন অভিযোগ থাকবে না।

অবস্থানঃ দ্বীপের দক্ষিন-পশ্চিমে রক বিচের কাছে
রিসোর্টে যাওয়ার কয়েকটি উপায় রয়েছে পায়ে হেঁটে দেড় ঘন্টার মত সময় লাগবে, বাইক বা সাইকেল নিয়ে, রিসোর্টের স্পিডবোট সার্ভিস নিয়ে। স্পিডবোট সার্ভিস নিয়ে যাওয়াটাই সবচেয়ে ভালো।

রিসোর্ট ভাড়াঃ তাঁবু ৩০০০/৪০০০/৬০০০ টাকা, কন্টেইনার ৪০০০/৫০০০ টাকা।

রুম সংখ্যাঃ ৫টি কন্টেইনার, ৭টি তাঁবু

ওয়েবসাইটঃ https://musicecoresort.com

রেটিং,
ফেসবুক পেজঃ কোন রিভিউ নেই
গুগলঃ ৪.৩ (১৩৫টি রিভিউ)

রিসোর্টের সুবিধা সমূহঃ
১। নিজস্ব রেস্টুরেন্ট
২। রক বিচ
৩। তাঁবু
৪। শব্দহীন শান্ত পরিবেশ
৫। ১৫ মিনিট পায়ে হেঁটে ছেঁড়াদ্বীপ
৬। রিসোর্টের কাছেই ম্যানগ্রোভ বন
৭। সূর্যোদয় ও সূর্যাস্ত দেখার সুবিধা

ফেসবুক পেজঃ মিউজিক ইকো রিসোর্ট (Music Eco Resort)


নীল দিগন্ত রিসোর্ট (Nil Digante Resort)

দ্বীপের দক্ষিন-পশ্চিমে বিচের পাশে নীল দিগন্ত রিসোর্টটি অবস্থিত।

অবস্থানঃ দক্ষিন-পশ্চিমে কোনাপাড়ায়
ভ্যান নিয়ে জেটিঘাট রিসোর্টের কাছাকাছি পর্যন্ত যাওয়া যায়। ভাড়া নিবে আনুমানিক ২০০-২৫০ টাকা।

রিসোর্ট ভাড়াঃ ২৫০০ থেকে ৪৫০০ টাকা পর্যন্ত।

রুমঃ ৩৮ টি

ওয়েবসাইটঃ www.neeldiganteresort.com

রেটিং,
ফেসবুক পেজঃ ৪.৩ (১২টি রিভিউ)
গুগলঃ ৪.১ (৬১০টি রিভিউ)

রিসোর্টের সুবিধা সমূহঃ
১। রিসোর্টের নিজস্ব রেস্টুরেন্ট
২। হ্যামক

ফেসবুক পেজঃ নীল দিগন্ত রিসোর্ট (Nil Digante Resort)


দ্যা বিচ ক্যাম্প রিসোর্ট (The Beach Camp Resort)

সেন্টমার্টিনের পশ্চিম বিচে সবচেয়ে বড় বীচ ভিউ রিসোর্ট। এটি সম্পূর্ণ একটি ইকো রিসোর্ট। বাঁশ, কাঠ, টিন ও ছনে সাজানো এই রিসোর্টটি। যারা মূলত নির্জন ও নীরবতা পছন্দ করেন তাদের কাছে রিসোর্টটি পছন্দ হবে।

অবস্থানঃ পশ্চিম বিচে
ভ্যান নিয়ে জেটিঘাট রিসোর্টের কাছাকাছি পর্যন্ত যাওয়া যায়। ভাড়া নিবে আনুমানিক ২০০-২৫০ টাকা।

রিসোর্ট ভাড়াঃ ২৫০০ থেকে ৫০০০ টাকা পর্যন্ত।

রুমঃ ৪টি, তাঁবু ৩টি

রিসোর্টের সুবিধা সমূহঃ

  • রিসোর্টে খাবারের সুব্যবস্থা
  • হ্যামক
  • রিসোর্টের সামনে সমুদ্র
  • দোলনা

ফেসবুক পেজঃ The Beach Camp Resort

সেন্টমার্টিন রিসোর্ট বুকিং সংক্রান্ত পরামর্শ

  • সময়ভেদে প্রতিটি রিসোর্টের রুম ভাড়া উঠানামা করে। প্রতিমাসের শুক্র-শনিবারের রুম ভাড়া তুলনামূলকভাবে বেশি থাকে। সপ্তাহের অন্যান্য দিনগুলোতে ডিসকাউন্ট পাওয়া যায়।
  • রিসোর্ট বুকিং করার সময় তার অবস্থান ভালোভাবে জেনে নিবেন। প্রতিটি রিসোর্টের অবস্থান সম্পর্কে আমি ধারনা দেওয়ার চেষ্টা করেছি।
  • রিসোর্ট বুকিং এর সময় অগ্রিম পেমেন্ট করতে হয়ে সেক্ষেত্রে ভালোভাবে যাচাই করে নিবেন।

ফেসবুকে যোগাযোগ করতে ক্লিক করুন

ম্যাসেঞ্জারে যোগাযোগ করতে নক দিন

আরো পড়ুন

আপনার মতামত জানান
SHARE