মোহাম্মদপুর জেনেভা ক্যাম্পের বোবা ও কামালের বিরিয়ানী

আগারগাঁও লিংক রোডে থাকতে ইকবাল ভাই বললো, হিমেল প্ল্যান করছি এপ্রিলের শেষ সপ্তাহে মোহাম্মদপুর বিহারী ক্যাম্পে বোবার বিরিয়ানী আর কামাল বিরিয়ানী খাবো। আমি খুব ভাব নিয়া বললাম, এইসব ফিউচার প্ল্যান আমারে বইলা লাভ নাই। যদি খাইতে চাও এখন চলো দুই প্লেট মাইরা আসি। আমাকে অবাক করে দিয়ে ইকবাল ভাই রাজি হয়ে গেলো!

রাত ১০.৩০ জেনেভা ক্যাম্পে হামলা করলাম। বোবা আর কামাল দুইটাতেই খাবো তাই প্রথমে বোবায় গেলাম। এতো রাতেও বসার জন্য বেশ কিছু সময় দাঁড়িয়ে থাকতে হলো। হাফ কাচ্চি অর্ডার দিলাম। বোবার বিরিয়ানী কিছুটা তৈলাক্ত। হাফ প্লেটে ২/৩ পিস মাংস দেয় সাথে ১টা আলু। স্বাদ বেশ ভালো তবে আগে আরো ভালো ছিলো। পেটে ক্ষুধা থাকায় মজা করেই খেলাম।

বোবায় খাওয়া শেষে হানা দিলাম কামালে। এখানে বোবার দ্বিগুন ভিড়। কামালে যখন ঢুকি তখন রাত ১১টার উপর বেজে গেছে কিন্তু বসার জায়গা নেই। মাত্রই খেয়ে পেট ভরা থাকায় খুশি হলাম। এই সুযোগে পেট যদি কিছুটা ফাঁকা হয়! আমাদের সামনেই কাচ্চি শেষ হয়ে যাওয়ার নতুন কাচ্চির পাতিল আনা হয়েছে। দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে দেখছিলাম আর ভিডিও করছিলাম। প্রায় ১৫ মিনিট পর বসার জায়গা পেলাম। এখানে ফুল কাচ্চি অর্ডার দিলাম।

কামাল বিরিয়ানী
কামালের লোভনীয় মাংসের পিস আর মন মাতানো আলু

ভিডিও করতে করতে যে কাচ্চি সার্ভ করতেছিলো তার সাথে ভালো খাতির হয়ে গেলো। সে নিজ হাতে ভালো ভালো মাংসের টুকরা, আলু বেছে দিলো। এই বুদ্ধি অবশ্য রবিন ভাইয়ের কাছ থেকে পাওয়া।

রবিন ভাইয়ের ফেসবুক স্ট্যাটাস থেকে তুলে দিলাম, “কোন রেস্টুরেন্টে বিরিয়ানী খাইতে ঢুকলে অর্ডার দেয়ার পর হুদাই ডেকচির সামনে গিয়া খাবারের পারলে মামাসহ ভুংভাং ৪/৫টা ছবি তুলবেন। কাচ্চি হলে খাসা মাংসের পিস আর লাক্স সাবান সাইজ আলু পাবেন। মোরগ-পোলাও হলে ঠাসা রানের পিস পাবেন। তেহারি হলে জবরদস্ত মাংস আর আলু পাবেন। পাবেনই পাবেন। বিফলে মূল্য ফেরত।”

আমি ঠিক এই ফর্মুলাই এপ্লাই করেছিলাম এবং কথা ১০০ ভাগ সত্য।

দুই প্লেট ভরপেট কাচ্চি খেয়ে হেলেদুলে মেইন রাস্তায় এসে আর বাসে উঠতে ইচ্ছা হলো না। বাতাসও ছিলো হিমশীতল। বৃষ্টির আগ মুহুর্তে যে মিষ্টি বাতাস বয় ঠিক তেমন। রিকশায় চড়ে সে বাতাসের স্বাদ নিতে নিতে বাসায় চলে আসলাম।

কামাল বিরিয়ানী দোকানে ভীড় এবং খাবার সার্ভের ছোট্ট একটা ভিডিও

খাবারের স্বাদ

বোবার বিরিয়ানীর তুলনায় কামালের স্বাদ ভালো। বোবা আগে ভালো থাকলেও এখন আর তেমন স্বাদ নেই। দোকানে গেলে দেখবেন বোবার তুলনায় কামালে ভীড় বেশি। বোবায় ফুল প্লেট ৮০ টাকায় দেয় ৪ পিস মাংস। অন্যদিকে কামাল একই দামে দেয় ৫ পিস মাংস। হাড্ডি থাকে যদিও তবে যে সার্ভ করে তার সাথে খাতির করতে পারলে ভালো পিস পাওয়া যায়।

খাবারের দাম

বোবার বিরিয়ানী

ফুল প্লেট কাচ্চি – ৮০ টাকা
হাফ প্লেট কাচ্চি – ৫০ টাকা
মোরগ পোলাও – ১২০ টাকা
বোরহানী প্রতি গ্লাস – ২০ টাকা
এক লিটার বোরহানী – ১০০ টাকা
হাফ লিটার বোরহানী – ৫০ টাকা

কামাল বিরিয়ানী

খাসির কাচ্চি – ১৫০ টাকা
গরুর কাচ্চি স্পেশাল – ১২০ টাকা
ফুল প্লেট গরুর কাচ্চি – ৮০ টাকা
হাফ প্লেট গরুর কাচ্চি – ৫০ টাকা
চিকেন বিরিয়ানী- ১২০ টাকা
বোরহানী প্রতি গ্লাস – ২০ টাকা
এক লিটার বোরহানী – ১০০ টাকা
টিকা – ২০ টাকা
ডিম খালী ১ পিস – ২০ টাকা
ফিন্নি – ২০ টাকা

টিকার স্বাদ ভালো তবে সবসময় পাওয়া যায় না, পেলে অবশ্যই খাবেন।

স্পেশাল কাচ্চি স্টিলের প্লেটে দেয়, আলাদা একটা ভাব আছে।

স্টিলের প্লেটে কামাল বিরিয়ানীর স্পেশাল গরুর কাচ্চি
স্টিলের প্লেটে কামালের স্পেশাল গরুর কাচ্চি

যাওয়ার উপায়

বোবার বিরিয়ানী এবং কামাল বিরিয়ানীর দোকান জেনেভা ক্যাম্পের একই গলিতে। দুইটা রাস্তা দিয়ে যাওয়া যায়।

পথ-১

মোহাম্মদপুর বিহারী ক্যাম্পের মোস্তাকিমের চাপের দোকান পার হয়ে রাস্তার শেষ মাথায় গিয়ে হাতের ডানে ঢুকবেন। কাপড়ের অনেক দোকান পাবেন এই গলিতে। হাঁটতে হাঁটতে হাতের বামের দ্বিতীয় গলিতে ঢুকবেন। গলির মাথাতেই পাবেন বোবার বিরিয়ানী। বোবার দোকান পার হয়ে আরো ভিতরে কিছুদূর গেলেই পাবেন কামাল বিরিয়ানী।

পথ-২

শ্যামলী শিশুমেলা পার হয়ে অনুরাগ রেস্তোরা পাবেন। অনুরাগ রেস্তোরার পাশের গলি দিয়ে ঢুকে শেষ মাথায় যাওয়ার একটু আগে হাতের বামে একটা সরু গলি পাবেন। গলিতে ঢুকে হাঁটতে থাকলে প্রথমে পাবেন কামাল বিরিয়ানী। কামালের দোকান পার হয়ে আরো ভিতরে যেতে থাকলে গলির শেষ মাথার একটু আগে পাবেন বোবা বিরিয়ানী।

প্রথম পথ দিয়ে যাওয়াটাই ভালো। দ্বিতীয় পথ দিয়ে নাও চিনতে পারেন।

বি.দ্র. দোকান ১১.৩০টা-১২টা পর্যন্ত খোলা থাকে। আগে সারারাতই খোলা থাকতো এখন পুলিশের নিষেধে খোলা রাখতে পারে না। অনেক অপরাধীকে রাতে পুলিশ ধরলে তারা নাকি বলে যে বোবা থেকে খেয়ে আসছে এইজন্য বন্ধ করে দিতে হয়।

আপডেট

মোহাম্মদপুর জেনেভা ক্যাম্প ছাড়াও খিঁলগাও এবং লালবাগে কামাল বিরিয়ানীর শাখা রয়েছে। বোবা বিরিয়ানীর কোথাও কোন শাখা নেই।

খিঁলগাও শাখার লোকেশন তানভীর ভাইয়ের কমেন্ট থেকে তুলে দিচ্ছি,
“কামাল বিরিয়ানি এখন গোড়ান হাড়ভাংগা মোড়েও আছে, মুক্তা আর মামুন বিরিয়ানি এর মাঝে।
গোড়ানের আশে পাশে থাকলে কষ্ট করে মোহাম্মদপুর যাওয়ার দরকার নাই।”

আপনার মতামত জানান
SHARE

2 COMMENTS

  1. কামাল বিরিয়ানি এখন গোড়ান হাড়ভাংগা মোড়েও আছে, মুক্তা আর মামুন বিরিয়ানি এর মাঝে।
    গোড়ানের আশে পাশে থাকলে কষ্ট করে মোহাম্মদপুর যাওয়ার দরকার নাই।

    • খিঁলগাও ছাড়াও আগামীকাল লালবাগে তাদের তৃতীয় শাখার উদ্ভোধন হচ্ছে। আজ খেতে গিয়ে দেখে আসলাম।

Comments are closed.